তুমি আমার

তুমি আমার।
এর থেকে বড়ো কথা আর কখনও লেখা হয়নি!
তুমি আছো এই হৃদয়ের মণিকোঠায়।
এর থেকে সুরম্য আবাস আর কেউ গড়েনি!
তুমি আমার নিঃশ্বাসে পরম বিশ্বাসে।
এর থেকে নির্মল হাওয়া আর বয়নি কখনও।
তুমি আমার চোখের জলরেখা – আনন্দ এবং বিষাদে।
এর থেকে গভীর নদী আর জন্মেনি কোনোকালেও।
তুমি আমার প্রাণ – আমার বেরঙিন জীবনে
একমুঠো রঙের বান।
এর থেকে বড়ো সত্য আর কখনও হয়নি!
তুমি আমার, শুধু আমার।
এর থেকে বড়ো কবিতা আসলেই কেউ লিখেনি!

তুমি আসবে বলে..

তুমি আসবে বলে
ভালোবাসাহীনতায় অনাথ পাখিরা
আবার বুঝি মেলেছে ডানা
বঞ্চনার পিঙ্গল আকাশে।
তুমি আসবে বলে
সুর-বিস্মৃত পাথর এ হৃদয়ে
আবার জমেছে গুঞ্জন;
অজানিতে বুঝি গুনগুনায়
ছন্দ-হীনতায় মগ্ন ব্যাকুল এ মন।
আমার এ জগদ্দল মৌনতা
তুমি ভাংবে বলে অনুভবি,
ভাবনার অতলে ঠিকানা হারালো
উদাসীনতার ক্লেশকর প্রত্যয়!
তুমি আবার ফিরবে বলে
নিদাঘের রং বুঝি বদলে যায়!
বুকের তপ্ত হাহাকারে মেশে
ছায়া সুশীতল, বারিময় অর্চনা।
তুমি আবার আসবে বলে
প্রতীক্ষায় ক্লিষ্ট আমার এই আমি
হৃদয়ের শব্দহীন ক্রুর জোছনায়
প্রেমময় মেঘের আড়াল খুঁজে যায়।

তুমি বিনা

তুমি বিনা লাগে না কিছুতে মন
তুমি হীনা সব তামাদি
তুমি বিনা শুধু নির্জলা বিকর্ষণ!!

যখন আমি পাই না কোথাও তোমায়,
গেঁথে চলো মৌনি-মালা, তখন
কিছুই হায়, এ মন না ভোলায়!

তুমি বিনা রং ফোটে না আকাশে
তুমি হীনা গোলমাল পাখি-ঠোঁটে
তুমি বিনা উদোম বিতৃষ্ণা হৃদ-সকাশে!

তখনো আমি খুঁজি তারে বারে বারে
কেবলি চাই উতকন্ঠা ভরে
যদি আসো মিছে অভিমান ভুলে?

তুমি বিনা ভালো লাগে না জীবন
তুমি হীনা সব বিবাগি
তুমি বিনা শুধু নির্মায়িক জ্বালাতন!